পুলিশের কাজে বাধা : আসামী দেওয়ার শর্তে ছাড়া পেলেন ইউপি চেয়ারম্যান

শিরোনাম সারাদেশ

মোঃ সরোয়ার হোসেন ,ভাঙ্গা,ফরিদপুর: ফরিদপুরের ভাঙ্গায় পুলিশের কর্তব্য কাজে বাঁধা দেওয়ার অভিযোগে এক ইউপি চেয়ারম্যানকে আটক করেছে পুলিশ। পরে চেয়ারম্যানের বাধায় পালিয়ে যাওয়া আসামীকে পুলিশের হাতে সোপর্দ করার শর্তে তিনি ছাড়া পান। আটককৃত ইউপি চেয়ারম্যানের নাম মোতালেব মাতুব্বর।

তিনি উপজেলার আজিমনগর ইউনিয়ন হতে নির্বাচিত হন। সোমবার দুপুরে তার নিজস্ব ব্যবসা প্রতিষ্ঠান উপজেলার তারাইল ইটভাটা থেকে তাকে আটক করার পর বিকেলে থানায় ওই আসামীদের পুলিশের হাতে সোপর্দ করে তাকে ছেড়ে দেওয়া হয়। পুলিশ সূত্রে প্রকাশ,দস্যুতার অভিযোগে জনৈক ইসমাইল শেখসহ অজ্ঞাত ২/৩ জন গ্রেফতারী পরোয়ানাভুক্ত মামলার আসামী ওই ইউ.পি চেয়ারম্যানের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে অবস্থান করছে এমন সংবাদের ভিত্তিতে ভাঙ্গা থানার এস.আই আবুল বাশারসহ সঙ্গীয় পুলিশ নিয়ে অভিযান চালায়।

এ সময় ইউপি চেয়ারম্যান আসামীদের গ্রেফতারে বাধা প্রদান করেন এবং ইটভাটায় কর্মরত নির্মান শ্রমিকরা পুলিশের উপর এলোপাথারী ইটপাটকেল নিক্ষেপ করতে থাকে । এক পর্যায়ে তারা আসামীদের ছিনিয়ে নিয়ে যায়। এ ঘটনায় ওই ইউপি চেয়ারম্যান ও পুলিশের মধ্যে বাকবিতন্ডা সৃষ্টি হয়। অবস্থা প্রতিকুলে হওয়ায় পুলিশ কর্মকর্তা মোবাইল ফোনে বিষয়টি থানার অফিসার ইনচার্জ সৈয়দ লুৎফর রহমানকে জানান। খবর পেয়ে তিনি অতিরিক্ত পুলিশ নিয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনেন।

এ সময় ঘটনাস্থল থেকে পুলিশের কর্তব্য কাজে বাধা প্রদান করা ও হামলার অভিযোগে ইউ,পি চেয়ারম্যান মোতালেব মাতুব্বরকে আটক করা হয়। পরে বিকেলে ওই শর্তে তাকে ছেড়ে দেওয়া হয়। আসামীেেদর গ্রেফতার করতে যেয়ে হামলার শিকার ভাঙ্গা থানার এস.আই আবুল বাশার জানান, গ্রেফতারী পরোয়াভুক্ত আসামীদের গ্রেফতার করতে ওই ইউপি চেয়ারম্যানের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে গেলে তিনি পুলিশের সাথে অসৌজন্যমূলক আচরন করে ইটভাটা শ্রমিকদের উস্কে দিয়ে হামলার পাশাপাশি আসামীদের ছিনিয়ে নিয়ে যায়।

পরে অতিরিক্ত পুলিশ নিয়ে তাকে আটক করা হয়। উল্লেখ্য যে, গত ২৬ আগষ্ট উপজেলার দেওড়া বাজার থেকে ইসমাইল শেখসহ ৩/৪ জনের একটি সংঘবদ্ব চক্র জনৈক ব্যাক্তির অটোবাইক ছিনতাই করে। এ ঘটনায় দস্যুতার অভিযোগে মামলা হলে আসামীদের বিরুদ্বে গ্রেফতারী পরোয়ানা জারি হয়।

পোস্টটি শেয়ার করুন