সিদ্ধিরগঞ্জে পাষন্ড ছেলের হাতে বাবা জখম, থানায় অভিযোগ দায়ের

অপরাধ শিরোনাম

এন.এন.এস২৪, সিদ্ধিরগঞ্জ (২৪’ডিসেম্বর ২০১৯ইং মঙ্গলবার): সিদ্ধিরগঞ্জের মিজমিজি এলাকায় পাষন্ড ছেলের হাতে বাবা জখম, থানায় অভিযোগ দায়ের। বাবা নামের ব্যক্তিটি সে যিনি শত-সহস্র ঝড়-ঝঞ্ঝা নিরবে সহ্য করতে রাজি কিন্তু তার সন্তানকে ক্ষুদ্র আঘাত কিংবা কষ্টের ছিটেফোঁটা লাগাতেও নারাজ । সন্তান বাবাকে ডেকে যতখানি আত্মতৃপ্তি অনুভব করে তার চেয়ে বেশি তৃপ্তি অনুভব করে বাবা তার সন্তানের মধুর স্বরে বাবা ডাক শুনে। কিন্তু বাবা-ছেলের এই পবিত্র সম্পর্কের অপমান করেছে সিদ্ধিরগঞ্জের মিজমিজি এলাকার আরিফ। জমি সংক্রান্ত সামান্য বিরোধে আরিফ তার বাবা আব্দুর রহিমকে (৬৫) কোদাল, রড ও লাঠি দিয়ে এলোপাতারি মারধর করে। এক পর্যায়ে মাথায় ও কাঁধে কুঁপিয়ে জখম করে। গতকাল মঙ্গলবার থানার মিজমিজি মতিন ব্রিজ সংলগ্ন এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। পরবর্তীতে আব্দুর রহিমের মেয়ে ঝিলমিল বাদী হয়ে থানায় অভিযোগ করলে থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে। জানা যায়, আব্দুর রহিমের তার আপন বড় ছেলে আরিফের সাথে ৭’শতাংশ জমি নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলছে। এলাকায় কয়েকবার এ নিয়ে দেন দরবার হলেও মিমাংশা না হওয়ায় আদালতে মামলা হয়। আদালত আব্দুর রহিমের পক্ষে রায় দিলেও তার বড় ছেলে আরিফ মানতে নারাজ। গতকাল মঙ্গলবার সকালে জমির সূত্রধরে বাবা ছেলের সাথে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে ছেলে আরিফ, তার শাশুরি তাছলিমা, কহিনুর, আকলিমা, শারমিন ও মতিনসহ অজ্ঞাত আরো ৫/৬ জন আব্দুর রহিমকে কোদাল, রড ও লাঠি দিয়ে এলোপাতারি মারধর করে। এক পর্যায়ে মাথায় ও কাঁধে কুঁপিয়ে জখম করে। পরবর্তীতে তার মেয়ে ঝিলমিলের চিৎকারে আশপাশের লোকজন দৌড়ে আসলে ছেলে আরিফসহ বাকিরা পালিয়ে যায়। এসময় তারা আব্দুর রহিমের কাছে থাকা নগদ ২০ হাজার টাকা, একটি মোবাইল ও মেয়ে ঝিলমিলের গলায় থাকা একটি স্বর্ণের চেইন ছিনিয়ে নিয়ে যায়। আব্দুর রহিমকে উদ্ধার করে খানপুর ৩শ’ শয্যা হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। তার মাথায় ও কাধে ৭/৮টি সেলাই দেওয়া হয়েছে। সিদ্ধিরগঞ্জ থানার উপ-পরিদর্শক মজিবুর রহমান ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে

পোস্টটি শেয়ার করুন