ভাঙ্গায় অবৈধভাবে নদীতে বাধঁ দিয়ে মাছ শিকার করার সরঞ্জাম উচ্ছেদ করতে অভিযান

শিরোনাম সারাদেশ

ভাঙ্গা (ফরিদপুর) প্রতিনিধি : ফরিদপুরের ভাঙ্গা উপজেলার বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে নদীতে অবৈধভাবে বাঁশের বেড়া ও জাল দিয়ে বাধ নির্মান করে মাছ শিকার করায় বিপুল পরিমান সরঞ্জাম ধ্বংস করা হয়েছে।

মঙ্গলবার ভোর রাত থেকে কুমার নদীতে উপজেলার চুমুরদী ও ঘারুয়া ইউনিয়নের চৌকিঘাটা সংলগ্ন নদীতে এ অভিযান চালানো হয়। এছাড়া বেশ কয়েকটি এলাকায় অভিযান চালিয়ে বিপুল পরিমান মৎস্য ধ্বংসকারী চায়না দুয়াড়ী জব্দ করে তা পুড়িয়ে ফেলা হয়। অভিযান পরিচালনা করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট আজিম উদ্দিন।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা দেবলা চক্রবর্তী সহ মৎস্য অধিদপ্তরের কর্মচারী,আইনশৃংখলা বাহিনীর সদস্যবৃন্দ,সাংবাদিকবৃন্দ। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আজিম উদ্দিন জানান, দীর্ঘ্যদিন যাবৎ কুমার নদী ও এর আশপাশে নদীতে অবৈধভাবে বাঁেশর বেড়া ও জাল দিয়ে বাঁধ দিয়ে মাছ শিকার করে আসছিল এক শ্রেনীর অসাধু চক্র।

এছাড়া নিষিদ্ব ঘোষিত চায়না জাল দিয়ে বিপুল পরিমান মৎস্য নিধন করে আসছিল চক্রটি। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে খবর পেয়ে উপজেলার ঘারুয়া ইউনিয়নের চৌকিঘাটা ও চুমুরদী ইউনিয়নের পূর্ব সদরদী সংলগ্ন কুমার নদী ও আশপাশের বেশ কয়েকটি এলাকায় অভিযান চালিয়ে বাঁধগুলো উচ্ছেদ করা হয়। এছাড়া বিপুল পরিমান নিষিদ্ধ জাল জব্দ করে সেগুলো পুড়িয়ে ফেলা হয়। জনসার্থে এ অভিযান অব্যাহত থাকবে বলে জানান তিনি।

উল্লেখ্যযোগ্য,এর আগেও কুমার নদীতে অবৈধভাবে বাঁধ দিয়ে মাছ ধরার সরঞ্জাম উচ্ছেদ করা হয়। স্থানীয় ও প্রশাসন সূত্রে জানা যায়, উপজেলার কুমার নদীর বিভিন্ন পয়েন্টে নদীর স্বাভাবিক স্রোতকে বাঁশের বেড়া ও জাল দিয়ে বাধাগ্রস্থ করে প্রতিবছরের মত এবারও মাছ শিকারের মহোৎসব চলছিল। এক শ্রেণির অসাধু ব্যক্তি প্রভাব খাটিয়ে অবৈধভাবে ওই মাছ শিকার করে নদীর গতিপথকে বাঁধাগ্রস্থ করে।

পোস্টটি শেয়ার করুন