সিদ্ধিরগঞ্জে ভ্রাম্যমাণ আদালতের ভূয়া ম্যাজিষ্ট্রেট গ্রেফতার

শিরোনাম সারাদেশ

নিজস্ব প্রতিনিধি: সিদ্ধিরগঞ্জে ভ্রাম্যমাণ আদালতের ভূয়া ম্যাজিষ্ট্রেট গ্রেফতার। শনিবার দুপুর সাড়ে ১২’টায় সিদ্ধিরগঞ্জের কদমতলী কলেজ গেট এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

পুলিশ জানায়, ঝন্টু মিয়া বিভিন্ন সময় নিজেকে ভ্রাম্যমাণ আদালতের ম্যাজিষ্ট্রেট পরিচয়ে দিয়ে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে গিয়ে ভয় দেখিয়ে অর্থ আদায় করত। শনিবার সকালে সে কদমতলী কলেজগেট এলাকার মিষ্টির দোকানদার খাইরুল ইসলামের কাছে ভ্রাম্যমাণ আদালতের ভয় দেখিয়ে ১০’হাজার টাকা দাবী করে।

এ’সময় তাকে আটক করে থানায় খবর দিলে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে তাকে থানায় নিয়ে আসে।

দোকানদার খাইরুল ইসলাম জানায়, গত ২’নভেম্বর সকালে ঝন্টু তার দোকানে আসে। এসময় ঝন্টু তাকে জানায় সিদ্ধিরগঞ্জে ও নারায়ণগঞ্জের বিভিন্ন জায়গায় ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালিত হচ্ছে। একটু পরে আপনার এখানে ভ্রাম্যমাণ আদালত আসবে। তারা যাতে এখানে না আসে সেজন্য ১০’হাজার টাকা দাবি করে ঝন্টু।

এসময় খাইরুল ইসলাম ভ্রাম্যমাণ আদালতের জরিমানা ও মামলা থেকে বাঁচতে ঝন্টুকে ১০’হাজার টাকা দেয়। এদিকে, সাতদিন পরে শনিবার খাইরুল ইসলামের কদমতলী কলেজ গেট এলাকার আরেকটি দোকানে এসে উপস্থিত হয়। এদিনও সে ভ্রাম্যমাণ আদালতের কথা বলে খাইরুল ইসলামের শ্বশুরের কাছ থেকে টাকা চায়। খাইরুল ইসলামের শ্বশুর বিষয়টি তাকে জানালে সে দোকানে ছুটে আসে। এসময় ঝন্টু তড়িঘড়ি করে চলে যাবার সময় খাইরুল তাকে আটকে ফেলে। পরে তার কাছে বিষয়টি সন্দেহজনক হলে সে পুলিশকে খবর দেয়।

খবর পেয়ে সিদ্ধিরগঞ্জ থানা সহকারী উপ-পরিদর্শক মনিরুজ্জামান ঘটনাস্থলে গিয়ে ঝন্টুকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে। ঝন্টু মুন্সিগঞ্জ জেলার সিরাজদিখান থানার গোবরদি গ্রামের মৃত দবির মিয়ার ছেলে। এ বিষয়ে সিদ্ধিরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কামরুল ফারুক জানায়, মিষ্টির দোকানে ম্যাজিষ্ট্রেট সেজে অর্থ আদায়ের অভিযোগে ঝন্টু নামে এক প্রতারককে গ্রেফতার করা হয়েছে। মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

পোস্টটি শেয়ার করুন