মধুময় স্মৃতি: সাব্বির আহমেদ

শিরোনাম শিল্প-সাহিত্য

মধুময় স্মৃতি
– সাব্বির আহমেদ

স্মৃতির জানালা হাতছানি দিয়ে
ডাকে আমারে ডাকে,
সে যে আমায় দোলা দেয় মনে
খুঁজে ফিরি স্মৃতিটাকে।
রংধনু হতে সাত রং দিয়ে
রাঙানো দিন গুলি,
মনের মুকুরে উঁকি মারে শুধু
ভুলিয়াও যে না ভুলি।
শৈশবে কত কলার ভেলায়
বেড়াতাম খালে বিলে,
পুলকিত হৃদে গেঁথেছি মালা
শাপলার ফুল তুলে।
জলের তলায় ডুবে ডুবে শুধু
শালুক আর ঢ্যাপ তুলে,
দুপুর গড়িয়ে বিকেল হয়েছে
বাড়ি ফেরা গেছি ভুলে।
ঘোলা জলে কত ডিগবাজি খাওয়া
গ্রীষ্মের খরতাপে,
চোখ লাল করে ঘরে ফেরা পালা
পা টিপে চুপেচুপে।
রেললাইনের ধারে বসে রোজ
বিকেল করেছি পার,
কোথা আজ তোরা বন্ধু আমার
আয় ফিরে একবার।
চৈতালী মাঠে ছোলা পোড়া রোজ
খেতাম সাঁঝের বেলা,
কত মজা হোতো কালি মাখামাখি
সে দিন কি যায় ভোলা!
বৈশাখী ঝড়ে আম্রকাননে
ছেলে-মেয়ে দলে-দলে,
হুড়োহুড়ি কত কাড়াকাড়ি হতো
আম কুড়াবার ছলে।
আষাঢ় শ্রাবণে হৈ-হুল্লোর
বাদল ঝড়া দিনে
সাধ করে পা পিছল খেয়েছি
শ্যাওলা মাখা উঠোনে।
মনে পরে যায় দলবেঁধে মোরা
ঘুনি পেতে সারি সারি,
ছোট মাছ ধাওয়া করে ধরতাম
জলেতে মারিয়া বারি।
ভাদ্রের ভোরে চুপিচুপি উঠে
কুড়াতে যেতাম তাল,
পাকা তাল খেয়ে মুখে মাখামাখি
হয়ে গেছি বেসামাল!
শীতের সকালে বিচালি পুড়ায়ে
আগুনের পাশে বসে,
মচমচে মুড়ি আরও মজা হোতো
মিশে খেজুরের রসে।
অঘ্রায়ণে ধান কাটা শেষে
আমনের ফাঁকা মাঠে,
হোতো ডাংগুলি মহোৎসব
বন্ধু সকলি জুটে।
সহপাঠিরা কে কোথা আছে
অবিস্মৃত মুখগুলি,
কত স্মৃতিময় সেই নাম আজ
কি করে তোদেরে ভুলি?
মাসুদ,মুফা,সেলিম,সান্ত
উম্বার,আনোয়ার,
ইছুব,সিহাব,লিটন,রবি
ওয়াজেদ মোজাহার।
তোহিদ,রাজু,মাজেদা,ফরিদা
ইলিয়াস,ইয়াকুব আলি,
অপর্ণা,বিমল,মোতা,কুদ্দুস
রাইসুদ্দিন,সেফালী।
বিউটি,রফিক,লিটন,দিলিপ
মন্জু,দেলোয়ারা,
সাহিদ,বিদ্যুৎ,নজরুল
কে কোথায় আছিস তোরা?
ফিরে পেতে চাই সেই দিন গুলি
যদি পাওয়া যেত ফিরে!
বাঁধন হারা মনটা নিয়ে
হারাতাম আপনারে।
পোস্টটি শেয়ার করুন